History

১. প্রতিষ্ঠা ও নামকরণ :

হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালী, বাংলাদেশের স্বাধীনতার স্বপ্নদ্রষ্টা এবং স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান-এর ঘনিষ্ট সহচর তাঁর জীবন ও মৃত্যুর সহযাত্রী মুক্তিযুদ্ধের গুরুত্বপূর্ণ স্থপতি, চার জাতীয় নেতার অন্যতম শহীদ এ.এইচ.এম কামারুজ্জামান নামে প্রতিষ্ঠিত এই কলেজটি রাজশাহী মহানগরের উত্তর জনপদে শিক্ষা বিস্তারে বিশেষ প্রয়াস রাখছে। যার ফলশ্রুতিতে গত ৫ই সেপ্টেম্বর, ২০১৩ তারিখে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক কলেজটি পাঁচ তলা বিশিষ্ট একাডেমিক ভবনের ভিত্তি ফলক উন্মোচনের মধ্য দিয়ে এলাকার উচ্চ শিক্ষা প্রসারে নব দিগন্তের সূচনা হ‘ল।

কলেজটি প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৯৪ সালে। এ শিক্ষা মহানগরীতে বেসরকারী উদ্যোগে একটি যুগোপযোগী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ার স্বপ্ন নিয়ে এলাকার কিছু উদ্যোগী তরুণ ও কিছু শিক্ষানুরাগী ব্যক্তি একত্রিত হন। এপর্যায়ে কলেজ স্থাপনের লক্ষ্যকে সামনে রেখে ২৪ জুন,১৯৯৪ তারিখে প্রথম সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। শুরুতে নামটি ছিল হাউজিং এস্টেট মহাবিদ্যালয় এবং শুভ যাত্রার শুরুটি ছিল উপশহর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রায় পরিত্যাক্ত ভবনকে সংস্কার করে ক্লাশ রুমের উপযোগী করার মধ্য দিয়ে। পরবর্তীতে কলেজটি নিজস্ব জমিতে স্থানান্তর হয় অর্থাৎ রাজশাহী মহানগরী উপশহর সেক্টর-১ এ ১৯৯৫ সালে স্থায়ীভাবে রাজশাহী হাউজিং এস্টেটে স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি ৩১.১৩ কাঠা দলিল মূলে প্রদান করা নিজস্ব জমিতে এবং কলেজের নিজস্ব ব্যয়ে নির্মিত সাত কক্ষ বিশিষ্ট একতলা ভবনে। প্রতিষ্ঠা লগ্নে কলেজ পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক ছিলেন উপশহরের বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী এ্যাডভোকেট জিল্লুর রহমান ও সমাজসেবী আবুল কালাম আজাদ। উপরন্ত কলেজটির সার্বিক উন্নয়নের লক্ষ্যে রাজশাহীর উত্তর জনপদে উচ্চ শিক্ষা বিস্তারের মহান প্রচেষ্টাকে সফল করার উদ্দেশ্যে সেদিন সর্বাত্মক সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়ে পাশে দাঁড়িয়ে ছিলেন উপশহর তথা রাজশাহীর প্রজ্ঞাবান রাজনীতিবিদ, সমাজসেবক ও শিক্ষানুরাগী ব্যক্তিবর্গ।

কলেজের পরিচালনা পর্ষদের সভাপতিসহ অন্যান্য সদস্যদের প্রস্তাব ও অনুমোদনে রাজশাহী সরকারী কলেজের প্রাক্তন ইংরেজী বিভাগের সদ্য অবসর প্রাপ্ত প্রবীন অধ্যাপক ইউনুস আলীকে ০৮-০৭-১৯৯৪ তারিখে কলেজের সর্বপ্রথম অধ্যক্ষ পদে নিয়োগ প্রদান করা হয়। এরপর কলেজের গভর্ণিং বডি মেধা ও যোগ্যতার ভিত্তিতে ২৭-০৯-১৯৯৪ তারিখে ২৯ জন শিক্ষক ও কর্মচারীকে নিয়োগ প্রদান করে। প্রতিষ্ঠা লগ্নেই মহাবিদ্যালয়ে উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ে মানবিক, বিজ্ঞান ও বানিজ্য শাখা খোলা হয়। এদিকে যোগদান করা শিক্ষকবৃন্দ পাঠদান থেকে শুরু করে কলেজের সার্বিক উন্নতির লক্ষ্যে অদ্যাবধি তাদের অক্লান্ত শ্রম ও মেধার প্রয়োগ করে চলেছেন। ১৯৯৪-৯৫ শিক্ষা বর্ষে নবাগত উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষার্থীদের উদ্ভোধনী কøাশের মধ্য দিয়ে পাঠ দান কার্যক্রম শুরু হয়। ইতিমধ্যে ১১-০১-১৯৯৫ তারিখে কলেজটি রাজশাহী শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক ছাত্র-ছাত্রী ভর্তির প্রাথমিক অনুমোদন পায়। কাল পরিক্রমায় পরবর্তী ধাপে রাজশাহী শিক্ষাবোর্ড কর্তৃক কলেজটি পরিদর্শন সাপেক্ষে ২৪-০৮-১৯৯৫ তারিখে স্বীকৃতি প্রাপ্ত হয়। এর পর ১ জানুয়ারী, ১৯৯৭ সালে কলেজের শিক্ষক-কর্মচারীগণ এমপিও ভূক্ত হন।

১৯৯৭ সালে কলেজ গর্ভণিং বডি এক সভায় কলেজটির হাউজিং এস্টেট মহাবদ্যালয় নাম পরিবর্তন করে মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক ও চার জাতীয় নেতার অন্যতম শহীদ এ. এইচ. এম কামারুজ্জামানের নামে কলেজটির নামকরণ করা হয়। উল্লেখ্য যে, উক্ত সভায় উপস্থিত ছিলেন তৎকালীন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক জিন্নাতুন নেসা তালুকদার এম. পি। এবং গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তৎকালীন ডাক, তার এবং গৃহায়ন ও পূর্তমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম নতুন নামে ১৮ অক্টোবর, ১৯৯৭ তারিখে ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করে এক শুভ অধ্যায়ের সূচনা করেন। উল্লেখ্য যে, শহীদ এ. এইচ. এম কামারুজ্জামানের সুযোগ্য পুত্র সাবেক রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এ. এইচ. এম খায়রুজ্জামান লিটন ২১-০৫-২০০০ তারিখে বিদ্যোৎসাহী সদস্য হিসাবে কলেজের গর্ভাণিং বডিতে আসেন এবং কলেজকে কয়েক ধাপ এগিয়ে নেন। ইতিমধ্যে কলেজটি এমপিও ভূক্ত হয়ে যাওয়ায় বর্ষিয়ান অবসর প্রাপ্ত অধ্যাপক ইউনুস আলী অধ্যক্ষ পদটি ছেড়ে দেওয়ায় উক্ত পদে মোঃ মনিরুল ইসলাম ২৩-০৭-১৯৯৮ তারিখে নিযুক্ত হন। কিছুকাল তিনি উক্ত পদে বহাল থাকেন। পরবর্তীতে কলেজের গর্ভণিং বডি কলেজেটিকে ডিগ্রি পর্যায়ে উন্নীত করার লক্ষ্যে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিধি মোতাবেক ২৫-০৬-২০০২ তারিখে ডিগ্রি পর্যায়ে পাঠদানের লক্ষ্যে ১৭ টি বিষয়ে প্রভাষক নিয়োগ করা হয়। এরপর ৩১-০৭-২০০৭ তারিখে জাতীয় বিশ্ববিদ্যলয় হতে ২০০৭-২০০৮ শিক্ষাবর্ষে প্রথমত: ০৬ টি বিষয় অধিভূক্তি লাভ করে। ইতিমধ্যে রাজশাহীর দানশীল ও বিদ্যানুরাগী ব্যক্তিদের সহযোগীতা ও আর্থিক আনুকুল্লে এ সময়ে পাঁচতলা ভিত্তি বিশিষ্ট সাত কক্ষের একটি একতলা একাডেমিক ভবন নির্মিত হয়।

কালের পরিক্রমায় ০৭-০৯-২০০৯ তারিখে রাজশাহী সদর আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য জনাব ফজলে হোসেন বাদশা কলেজের পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি পদে আসেন। ইতিমধ্যে ০৫-০৫-২০১০ তারিখে মুহম্মদ আবদুস সাত্তার অধ্যক্ষ পদে নিযুক্ত হন। এর কিছুকাল পর একই কলেজের হিসাব বিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোঃ আব্দুল খালেক উপাধ্যক্ষ পদে নিয়োগ পান। সভাপতি সাহেবের সঠিক নির্দেশনা ও আন্তরিক প্রয়াস, অধ্যক্ষ ও উপাধ্যক্ষ এবং শিক্ষকবৃন্দের আন্তরিক প্রচেষ্টায় কলেজটি এক নতুন মাত্রা প্রাপ্ত হয়। যার ফলশ্রুতিতে কলেজের সুখ্যাতি চর্তুদিকে ছড়াতে থাকে। ইতিমধ্যে ০৫-০৫-২০১১ তারিখে কলেজটি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় হতে আরো ০৫ টি বিষয়ে ২০১০-১১ সেশন থেকে অনুমতি লাভ করে। এক পর্যায়ে মাননীয় সভাপতি জনাব ফজলে হোসেন বাদশার ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় ব্যক্তির নামে কলেজ প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে যে ১৫,০০,০০০/= (পনের লক্ষ) টাকার অনুদান দেখাতে হয় ‘শহীদ এ.এইচ.এম কামারুজ্জামান একজন জাতীয় ব্যক্তিত্ব’ বিধায় এ বিবেচনায় বাংলাদেশ শিক্ষামন্ত্রণালয় উক্ত টাকার অনুদান মওকুফ করে দেয় ।

রাজশাহী শিক্ষা বোর্ড কলেজটিতে ২০১২ সাল হতে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার কেন্দ্র স্থাপন করছে। ইতিমধ্যে ২০১২-১৩ শিক্ষা বর্ষ থেকে ১৫ টি বিষয় নিয়ে বিএ, বিএসএস ও বিবিএস ডিগ্রি কোর্স চালুর মাধ্যমে প্রায় ২০০০ জন শিক্ষার্থী এবং অধ্যক্ষ সহ ৫৫ জন শিক্ষক ও ১২ কর্মচারী নিয়ে গৌরবদীপ্ত একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসেবে সর্ব মহলের প্রশংসা কুড়িয়েছে।

সুদীর্ঘ পথ পরিক্রমায় এবার মহাবিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্ষদের সভায় সভাপতি মাননীয় সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা কলেজ জাতীয়করণের প্রস্তাব উত্থাপন করেন। এ প্রস্তাবের প্রেক্ষিতে জাতীয়করণের প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করার জন্য সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। সর্বপরি সভাপতি মহোদয়ের আন্তরিক প্রচেষ্টায় প্রধানমন্ত্রী কার্যালয় থেকে প্রেরিত স্মারক নং (পত্র সংখ্যা) -০৩.০০১.০০০.০০.০০.০৬.২০১৩-৭০ তারিখঃ ২৭ শে অক্টোবর, ২০১৩ খ্রিঃ, ১২ কার্তিক, ১৪২০ বঙ্গাব্দ অনুযায়ী মাননীয় প্রধান মন্ত্রী মহাবিদ্যালয়টি জাতীয়করনের লক্ষ্যে সানুগ্রহ সম্মতি প্রদান করেছেন।
কলেটি গত ০৮/১০/২০১৫ তারিখ জাতীয়করণ হয়েছে।

History

Establish And Naming :

Shahid A.H.M Kamaruzzaman Government Degree College, Rajshahi

Shahid A.H.M Kamaruzzaman Government Degree College, Rajshahi is one of the leading colleges of Rajshahi city. It is situated in Uposhor New Market, Boalia, Rajshahi. It was established in 1994 as Housing Estate College. It is affiliated with National University. It is basically higher secondary level college but offers degree level courses as well. This college has been declared as government college by the Ministry of Education in 2015.

This college is playing an important role in the expansion of education in the northern region. It has a dedicated teaching and administrative staff. Moreover, the college carries the memory of Shahid A.H.M Kamaruzzanman, who was a great leader, a member of Mujibnagar government and very much associated with Bangabandhu Sheikh Mujibur Rahman. As a result, the Honorable Prime Minister of the government of the people’s republic of Bangladesh, Sheikh Hasina inaugurated the 5-storey academic building in the college on 05 September 2013 and with that a new era of higher education begun in this region.

The college was established in 1994. Some creative, dynamic and enthusiastic group of people of this area came together with the dream of establishing a dynamic private college in Rajshahi metropolitan city. After that they started various activities of establishing the college with different initiatives. The first general meeting was held on 24 June 1994, with the aim of establishing the college. At the time of establishment, the college was named Housing Estate College. The journey of the college officially started at Uposhor primary school on 01 July 1994. After that it was shifted to its permanent campus at Uposhore, sector 1. The size of college campus is 51 decimals. Initially, a one story building with seven rooms was constructed at its own cost in its own campus.

The first president of the governing body of the college was advocate Zillure Rahman and general secretary was Abul Kalam Azad. People from every corner of Rajshahi city including educationists, wise politician, social workers had extended their helping hand of cooperation in establishing the college.

On the proposal and approval of the president and other members of the governing body of the college appointed Md Yunus Ali, retired professor of Rajshahi College, as the founder principal of the college on 08-07-1994. After this, the college authority appointed 29 teachers and some staffs on 27-09-1994 on merit basis. The education program of the college started with HSC level. Since its establishment, three major disciplines such as science, commerce and humanities were opened and teaching began as usual.

The first class of the college started with the fresher’s students of 1995-96 session with a grand inauguration ceremony. The college received preliminary approval for admission of students from Rajshahi Education Board dated 11-01- 1995. Later it was recognized by the Rajshahi Education Board on 24-08-1995. The teachers and staffs of the college were included in the MPO on 01-01-1997.

In a meeting of governing body in 1997, the governing body decided to change the name of Housing Estate College and rename as Shaheed A.H.M Kamaruzzaman College in 1997. It was decided to name the college after A.H.M Kamaruzzaman for his outstanding contribution in the war of independence and as he was very much associated with the father of nation Bangabandhu Sheikh Mujibur Rahman.

It should be noted that, Zinnatunnessa Talukdar, former Minister of State for Primary and Mass Education of the government of the people’s Republic of Bangladesh and Mohammed Nasim, former Minister of State for Home Affairs of the government of the people’s Republic of Bangladesh was present in that meeting. The foundation stone was laid by Zinnatunnessa Talukdar on 18 October 1997 and with this foundation stone, the new era of the college started.

It is noted that the A.H.M Khairuzzaman Liton, Mayor of Rajshahi City Corporation, the eligible son of A.H.M Kamaruzzaman participated in the meeting of the governing body as enthusiastic member on 21-05-2000. A.H.M Khairuzzaman played an important role here and increased the dynamism and mobility of the college to a great extent. After the college became MPO, Professor Md. Yunus Ali retired from the post of principal and Md. Monirul Islam took charge as the new principal on 23-07-1998.

Later the governing body of the college took steps to convert the college into a degree college. So the teacher recruitment process for degree level started. 17 lecturers were appointed for teaching at degree level in different subjects. Subsequently on 31-07-2007, 6 subjects were affiliated by the National University for the session 2007-2008. During this period, a one stored administrative building with 7 rooms on a 5-storey foundation was built with the help of charitable persons of Rajshahi city.

On 07-09-2009 Honorable Member of Parliament of Rajshahi Sadar Constituency Mr. Fazle Hossain Badsha was nominated as president of the governing body of the college. Muhammad Abdus Sattar took charge as principal on 05-05-2010 and Mr. Abdul Khalek, Assistant Professor, Department of Accounting, of the same college was appointed as the vice principal. Principal Abdus Sattar played an outstanding role in changing the qualitative and quantitative standards of the college.

The president with his sincere and dynamic efforts created a new trend in the college through proper planning and effective coordination among teachers, students and staffs. As a result, the college got a new dimension and increased the acceptance and reputation to the society. During this period, on 05-05-2011, 5 more subjects were approved by the National University for the session 2010- 2011.

A vital issue related to college fund was pending for a long time. According to the National University act, 15 Lac Taka had to be shown as grant for establishing the new college. But this condition had not been fulfilled since the establishment of the college. There was a good news for the college that 15 Lac Taka of donation was waived by the Ministry of Education for the sincere and effective role of Fazle Hossain Badsha (MP) and the college being named after A.H.M Kamaruzzaman, one of the four national leaders.

Rajshahi Education Board has established HSC examination center in the college since 2012. Already BA, BSS and BBS degree courses with 15 subjects have started from 2012-2013 session. Currently there are about 2000 students in the college along with 55 teachers and 12 staffs. They are playing a vital role in the development of the college.

After a long journey, Fazle Hossain Badsha (MP) the president of the governing body proposed about the nationalization of the college. In view of this proposal, a unanimous decision was taken to take the necessary steps for nationalization.

With the sincere efforts of the president, memorandum no. (Letter no) 03.001.000.00.00.06. 2013-70, dated October 27, 2013 was sent from the Prime Minister’s office and the Hon’ble Prime Minister gave consent to nationalize the college. Finally, the college was nationalized on 08-10-2015.

Although the college had some problems before nationalization, but the college changed dramatically after nationalization. Specially the result of the college for last three years in Rajshahi Education Board is unprecedented. The overall environment of the college and quality of education has changed drastically. The dynamic leadership of the existing principal Professor Dr. Md. Elias Uddin has given a new look to the college. If this trend continues, the college will soon become one of the best colleges in Bangladesh.

kiss8toto kiss8toto kiss8toto kiss8toto kiss8toto kiss8toto kiss8toto kiss8toto kiss8toto ladangtoto dslot4d pokatmpo ying77 kisstoto kawantoto kapaltoto garuda55 indo911 napi69 labutoto indosultan88 mechaslot garuda99 guatoto tauri88 honda99 kiss8toto kiss8toto kiss8toto ladangtoto2 uus77 kudetabet98 bibir69 scatter hitam pokatmpo pokatmpo pokatmpo dslot4d indratoto jonitoto kawantoto sekolah4d kapaltoto garuda55 slot goceng hokimpo kari4d slot goceng goceng slot bar88 amergg champion789 dingdongtoto rakyat88 wajik77 kiss138 ws168 perisaibet wajikslot bonbon77 ladangtoto ladangtoto1 ladangtoto2 kiss8toto kisstotokiss8toto kiss8toto kiss8toto kiss8toto kiss8toto kiss8toto kiss8toto kiss8toto kiss8toto ladangtoto dslot4d pokatmpo ying77 kisstoto kawantoto kapaltoto garuda55 indo911 napi69 labutoto indosultan88 mechaslot garuda99 guatoto tauri88 honda99 kiss8toto kiss8toto kiss8toto ladangtoto2 uus77 kudetabet98 bibir69 scatter hitam pokatmpo pokatmpo pokatmpo dslot4d indratoto jonitoto kawantoto sekolah4d kapaltoto garuda55 slot goceng hokimpo kari4d slot goceng goceng slot bar88 amergg champion789 dingdongtoto rakyat88 wajik77 kiss138 ws168 perisaibet wajikslot bonbon77 ladangtoto ladangtoto1 ladangtoto2 kiss8toto kisstoto indo911 sniperjitu ying77 labutoto napi69 indosultan88 mechaslot golden189 doyantogel kisetoto nadim4d slot thailand nadimtoto neo69 cun88 dingdongtogel88 userbet555